বাংলাদেশঃ চিকিৎসা ব্যবস্থা, আশার আলো এবং কিছু আশঙ্কা

একনজরে বিগত এক মাসের স্বাস্থ্যখাত সংক্রান্ত সংবাদের হেডলাইনসমূহঃ


...২০১৮-২০১৯ইং শিক্ষাবর্ষে মেডিকেল ভর্তিপরীক্ষায় ৫০০ আসনসংখ্যা বৃদ্ধি করে মোট সীটের সংখ্যা ৩৮১৮ তে উত্তীর্ণকরন।

...আগামী সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে নতুন করে আরও ৭ হাজার ডাক্তারের পদায়ন করা (স্বাস্থ্যমন্ত্রী) 


...ডিসেম্বরে আরও ৫ হাজার ডাক্তার নিয়োগের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া। 


...আগামী মাসের মধ্যে নতুন তিনটি (চট্টগ্রাম, রাজশাহী, সিলেট) মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অবকাঠামো নির্মাণ শুরু করা। 


...অচিরেই আরও নতুন চারটি মেডিকেল কলেজ ঘোষণা করা এবং আগামী বছর থেকে আর এমবিবিএস কোর্সে ২০০ নতুন সীট বৃদ্ধি করা।


নিঃসন্দেহে দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশের বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে নামমাত্র বেতনে কর্মরত ডাক্তারসমাজ, উচ্চশিক্ষায় ইচ্ছুক চিকিৎসকদের জন্য এবং মেডিকেল ভর্তিতে ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের জন্য আপাতদৃষ্টিতে সবগুলো সংবাদই আশার আলো বহন করে। 

ডব্লিউএইচও রেঙ্কিং-এ বাংলাদেশ হেলথ কেয়ার ৮৮তম



তথাপি প্রকৃত চিকিৎসাসেবা সহ অতীব সংবেদনশীল মেডিকেল গ্রেজুয়েট এবং পোস্টগ্রেজুয়েট শিক্ষার মান দেশের নিয়ন্ত্রনের প্রতি গুরুত্ব অনুধাবন, দেশের মেডিকেল এডুকেশনকে দেশের বাইরের সাথে "Standardization" করা এবং সর্বোপরি দেশের চাহিদা উপলব্ধি করে মেডিকেল কলেজ এবং মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপনের প্রতি সংশ্লিষ্টরা গুরুত্ব দিবেন, এটাই আশা রাখছি। নতুবা, এতো ভালোর পরেও দেশের চিকিৎসার মান কমে যাওয়ার সম্ভাবনাটাই প্রবল। 


তথ্যসুত্রঃ https://go.spyluv.com/2PFT7TE
Share:

কোন মন্তব্য নেই:

এক নজরে...



ডাঃ লালা সৌরভ দাস

এমবিবিএস, ডিইএম (বারডেম)

ডায়াবেটিস, থাইরয়েড এবং হরমোন বিশেষজ্ঞ (এন্ডোক্রাইনোলজিস্ট)

কনসালটেন্ট, ওয়েসিস হাসপাতাল, সিলেট

প্রাক্তন মেডিকেল অফিসার, সিলেট ডায়াবেটিক হাসপাতাল

মেম্বার অফ বাংলাদেশ এন্ডোক্রাইন সোসাইটি

মেম্বার অফ আমেরিকান এ্যাসোসিয়েশন অফ ক্লিনিকাল এন্ডোক্রাইনোলজিস্ট



Subscribe

Recommend on Google

Recent Posts